আফগানিস্তান থেকে বিশ্বে বন্যার মতো ছড়াচ্ছে মাদক

বিশ্ব সংবাদ : তালেবানরা আফগানিস্তান দখলের পর তিন মাস পাঁচ দিন পার হয়েছে। কিন্তু দেশটি নিয়ে শঙ্কা এখনও কাটেনি। যুদ্ধ, সংঘাত, মানবতাবিরোধী অপরাধ তো আছেই, এর পাশাপাশি বড় একটি সমস্যা নিয়ে গোটা বিশ্ব উদ্বিগ্ন। আর সে সমস্যা হলো মাদক। কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে, দেশটি থেকে যেন বন্যার পানির মতো বিশ্বব্যাপী মাদক আছড়ে পড়ছে।

অনেকে প্রশ্ন করতে পারেন, তালেবান শাসনাধীন আফগানিস্তানেও মাদকের থাবা আছে? হ্যাঁ, তালেবানের আয়ের অন্যতম উৎসই তো এ মাদক। দেশটিতে সবচেয়ে সহজলভ্য মাদক হলো আফিম। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি আফিম উৎপাদিত হয় আফগানিস্তানে। সে আফিম থেকে তৈরি হয় হেরোইন। ইউরোপ, আমেরিকা ও এশিয়ার চোরাচালানকারীদের কাছে এ নিষিদ্ধ মাদকের ব্যাপক চাহিদা আছে। গত ১৫ আগস্ট তালেবানের কাবুল দখলের পর থেকে এ ব্যবসা আরও ফুলেফেঁপে উঠেছে।

আফগানিস্তান থেকে এ মাদক বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই ছড়িয়ে পড়ছে। ফলে তরুণেরা মাদকাসক্ত হয়ে উঠছে। এ ব্যাপারে বিশ্বনেতারা বেশ উদ্বিগ্ন। কেননা এ মাদকের মাধ্যমে হুমকির মুখে পড়তে পারে বিশ্বশান্তি। সৃষ্টি হতে পারে সভ্যতা বিধ্বংসী সন্ত্রাস। অন্যদিকে আফগানিস্তানে উৎপাদিত মাদকের ৪০ শতাংশ পাচার হয় পাকিস্তানে। দেশটির স্বনামধন্য সাংবাদিক হামিদ মির দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছেন, মাদক চোরাচালানের ক্ষেত্রে আফগানিস্তানের ঘনিষ্ঠ সহযোগী পাকিস্তান। সম্প্রতি ইউরোপিয়ান ফাউন্ডেশন ফর সাউথ এশিয়ান স্টাডিজ জানিয়েছে, বিশ্বের ৮৭ শতাংশ আফিম উৎপাদন হয় আফগানিস্তানে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *