৩৩৩ নম্বরে কল, খাবার পেলেন মণিরামপুরের ১৪ পরিবার

উত্তম চক্রবর্তী,মনিরামপুর যশোরঅফিস।। শারীরিক অসুস্থতার কারণে কাজ করতে পারেন না যশোর জেলার মনিরামপুরের ঘুঘুরাইল গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম। সমিতির ঋণ নিয়ে একটি চা দোকান চালিয়ে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে কষ্টের সংসার তার। লকডাউনে খাদ্য সংকটে পড়ে এক আত্মীয়র পরামর্শে কয়েকদিন আগে কল করেন ৩৩৩ নম্বরে। আজ মঙ্গলবার ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান পরিষদে ডেকে তাকে ১০ কেজি চাল, পাঁচ কেজি আটা, দুই কেজি তেল, এক কেজি ডাল ও এক কেজি লবন দিয়েছেন। প্যারালাইজড হয়ে পঙ্গুত্ব জীবন একই ইউনিয়নের হালসা গ্রামের প্রতিবন্ধী ফজলুর রহমানের। স্ত্রী কর্মসূচির শ্রমিক আর তিনি পেশায় ভিক্ষুক। তিনিও অসহায়ত্বের কথা জানিয়ে ৩৩৩ নম্বরে কল করেছেন। পেয়েছেন খাদ্য সহায়তা। এমনিভাবে আজ মঙ্গলবার শ্যামকুড় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ৯ পরিবারকে ও খানপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে পাঁচ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। শ্যামকুড় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনি বলেন, আমার ইউনিয়নের ১১ জন সহায়তা চেয়েছেন ৩৩৩ নম্বরে। তাদের তালিকা ও খাদ্য সামগ্রী ইউএনও অফিস থেকে আমার কাছে পাঠানো হয়েছে। যাচাইবাছাই করে নয় জনকে খাদ্য সামগ্রী দিয়েছি। মনিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ জাকির হাসান বলেন, ৩৩৩ নম্বরে কল দিয়ে খাদ্য সহায়তা চেয়েছেন এমন ১০০ জনের খাবারের ব্যবস্থা করেছি। আজ মঙ্গলবার দুই ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ১৪ জনকে খাদ্য পৌঁছে দিয়েছি। ধারাবাহিকভাবে অন্য ইউনিয়নে তালিকাভুক্তদের খাদ্য পৌঁছে দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *