সাতক্ষীরা কলারোয়া পৌরসভা নির্বাচন মেয়র পদে লড়াইয়ে মাঠে চার প্রার্থী

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: আগামী ৩০ জানুয়ারি সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৫জন প্রার্থীর লড়াইয়ে প্রচার প্রচারণা আর ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুর- ছে ৪জন মেয়র পদপ্রার্থী।

সাদা-কালো পোস্টারের আবরণে মোড়া পৌর এলাকার সর্বত্র এলাকায় প্রার্থীদের পদচারণা আর মাইকিং জানান দিচ্ছে নির্বাচন আর বেশি দূরে নয়। কলারোয়া পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে নৌকা প্রতীকে লড়ছেন আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে স্থানীয় কয়লা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান বুলবুল, ধানের শীষ প্রতীকে বিএনপির দলীয় প্রার্থী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শেখ শরিফুজ্জামান তুহিন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মোবাইল প্রতীকে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য পদ থেকে সদ্য বহিস্কৃত সাজেদুর রহমান খান মজনু এবং সাবেক মেয়র আক্তারুল ইসলামের সহধর্মিনী নার্গিস সুলতানা জগ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী লড়াইয়ে নেমেছেন। তবে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সাবেক মেয়র আক্তারুল ইসলাম মনোনয়ন পেলেও তিনি তার স্ত্রীর পক্ষেই ভোট চাচ্ছেন।

নৌকার প্রার্থীর শিক্ষক মনিরুজ্জামান বুলবুল নেতা-কর্মীদের নিয়ে রাত দিন পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে নৌকা প্রতীকের বিজয় আনতে সর্বত্র মাঠে ঘুরে বেড়াচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। তিনি জানান, ‘আমি ছাত্র জীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া আওয়ামী লীগের নিবেদিত কর্মী। আমি নৌকায় বিজয় আনতে পারলে কলারোয়া পৌরসভাকে একটি মডেল পৌরসভায় রুপান্তর করব। ইতোপূর্বে যারা মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছেন তারা কলারোয়া পৌরবাসীর জন্য কিছুই করেননি। তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকার মাঝি বানিয়েছেন। আমি চারিদিকে যে পরিমাণ সাড়া পাচ্ছি তাতে আমার বিজয় ইনশা আল্লাহ।

অপর দিকে ধানের শীষ প্রতীকে বিএনপির প্রার্থী শেখ শরিফুজ্জামান তুহিন ধানের শীষের জয়ের লক্ষে পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে তিনি তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছেন। তিনি জানান, ‘দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান আমাকে ধানের শীষ প্রতীক দিয়ে- ছেন। আমি আশাবাদী আমিই বিজয়ের মালা পরব, যদি মানুষ নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারে। তাছাড়া আমি বিজয়ী হলে অব- হেলিত কলারোয়া পৌরসভাকে একটি আধুনিক ও মডেল পৌরসভায় রুপান্তিত করব’। আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে জানাতে চাই, আমাদের এই পৌরসভায় সঠিকভাবে নির্বাচন করার লক্ষ্যে ব্যালট পেপার ও বক্স ভোটের আগের দিন না এনে ভোটের দিন সকাল ৭টার মধ্যে আনার অনুরোধ করছি’।

স্বতন্ত্র প্রার্থী সাজেদুর রহমানখান মজনু মোবাইল প্রতীকে ভোট প্রার্থনার জন্য তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তিনি উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা হলেও দলীয় সিদ্ধান্ত না মানার কারণে দল তাকে বহিষ্কার করেছে। কিন্তু তার জন- সমর্থন ও ভোটারও রয়েছে বেশ।

এদিকে জগ প্রতীক নিয়ে থেমে নেই স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী দুই বারের নির্বাচিত ও বর্তমান বহিস্কৃত মেয়র মো. আক্তারুল ইসলামের সহধর্মিনী নার্গিস সুলতানা। তবে আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী আক্তারুল ইসলাম জানান, ‘আমি বিএনপি থেকে দুই বারের সফল মেয়র। এবারও দলীয় টিকিট চেয়েছিলাম কিন্তু দল আমাকে অদৃশ্য কারণে মনোনয়ন না দেয়ায় আমিও আমার সহধর্মিনী নার্গিস সুলতানা স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছিলাম। সংগত কারণে আপাতত আমার সহধর্মিনী নার্গিস সুলতানার জগ প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করছি। আমি আশাবাদী সঠিকভাবে ভোট হলে মানুষ নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারলে নার্গিস সুলতানা বিপুল ভোট পেয়ে নির্বাচিত হবে বলে আমি মনে করি।’ আমি কয়েক দিনের মধ্যেই আমার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেব। এছাড়া কলারোয়া পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে সর্বত্র প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে কাউন্সিলর পদপ্রার্থীরা। পৌর এলাকার অলিতে-গলিতে মেয়রপ্রার্থীদের পাশাপাশি শোভা পাচ্ছে কাউন্সিল পদপ্রার্থীদের পোস্টার ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থীদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *