শার্শায় ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণ রিপোট প্রকাশ করায় সাংবাদিককে হত্যার হুমকি

সোহাগ হোসেন : যশোরের শার্শায় সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলমকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে দুবৃর্ত্তরা। এ ঘটনায় তিনি রবিবার সকালে শার্শা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। জিডি নং-৯২৫ তাং২২/১১/২০। হত্যার হুমকি দাতা হলো, আরিফ, রাসেল ও কবির।
জাহাঙ্গীর আলম শার্শা উপজেলার বাগ আঁচড়া ইউনিয়নের সাত মাইল গ্রামের বাসিন্দা। তিনি দৈনিক সরেজমিন ও প্রতিদিনের বাংলাদেশ ডট কম এ দুটি সংবাদমাধ্যমের শার্শা উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন।
তিনি বলেন, শার্শার টেংরা গ্রামে ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণচেষ্টা সংবাদ প্রকাশ করায় তার জীবন নাশের হুমকি দেয় দুবৃর্ত্তরা । শনিবার সন্ধা ৫টা ৪৭ মিনিটে ০১৭৩০২৩৮৯০৭ ও রাত ১০টা ৪২ মিনিটে ০১৭১২-৫৮৬০৩৫ নম্বর থেকে তাঁকে ফোন করা হয়। এ সময় তাঁকে অকথ্য ভাবে গালাগাল করে প্রাণনাশের হুমকি দেয় দুরবিত্তরা।
সাংবাদিককে হত্যার হুমকি দেওয়ার ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন শার্শা উপজেলার সময় টিভির সাংবাদিক আজিজুল হক। দ্রুত হুমকিদাতাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান।
সাংবাদিক সোহাগ হোসেন বলেন, সংবাদ প্রকাশের জের ধরে হুমকি দেয়ার ঘটনা ন্যক্কারজনক। আমরা এই হুমকি দাতাদের শাস্তি দাবি করছি। প্রকাশিত সংবাদের ভুল বা অতিরঞ্জিত কিছু থাকলে তিনি মামলা করতে পারতেন। প্রতিবাদ দিতে পারতেন। তিনি সেটা না করে যেখানে পাবে সেখানে হত্যার হুমকি দিয়েছেন। এটা বাকস্বাধীনতার পরিপন্থী।
গত ১৭ নভেম্বর মঙ্গবার রাতে শার্শা উপজেলার টেংরা গ্রামে ৪থ শ্রেণীর ছাত্রীর ধসণ চেষ্টার অভিযোগে শার্শা থানায় একটি মামলা হয়। যার মামলা নং৩২ তাং১৭/১১/২০। এ মামলা ইসমাইলের নামে ও অজ্ঞাত ৭/৮ জনের নামে করা হয়। পুলিশ ঐ রাতেই ইসমাইল আটক করলেও অজ্ঞাতরা থেকে যায় ধরা ছোঁয়ার বাইরে। এ সংবাদ প্রকাশ করায় তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়।
শার্শা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুল আলম জানান, এ ঘটনায় জাহাঙ্গীর নিরাপত্তা চেয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। অভিযোগটি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *