শার্শায় ছাত্রলীগের উদ্যোগে বঙ্গমাতার ৯১তম জন্মদিন পালিত

শার্শা (যশোর): জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিনী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের
৯১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে শার্শায় উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও বৃক্ষরোপণের মধ‍্যদিয়ে অনুষ্ঠান পালন করা হয়।

রবিবার (৮ই আগস্ট) বিকাল ৪টার সময় উপজেলার নাভারন ডিগ্রী কলেজ হলরুমে উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও যশোর জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল।
বক্তারা বলেন, ১৯৩০ সালের ৮ আগস্ট গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। তার ডাকনাম ছিল রেণু। তার বাবার নাম শেখ জহুরুল হক। মা হোসনে আরা বেগম। এক ভাই ও দুই বোনের মধ্যে সবার ছোট ছিলেন তিনি।
বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছার সাহসীকতা ও দেশের প্রতি তার নানা দ্বায়িত্ববোধের কথা তুলে ধরেন। তিনি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় বঙ্গবন্ধু যখন পাকিস্তানী শাসকদের হাতে বন্দি তখন দৃঢ়তার সঙ্গে পরিস্থিতি সামাল দেন ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। পরবর্তীকালে দেশ পুনর্গঠনে বঙ্গবন্ধুর পাশে থেকে কাজ করেছেন। সাহায্য করেছেন গরিব, এতিম ও অসহায় মানুষদের।
বীরাঙ্গনাদের বিয়ের ব্যবস্থা করে তাদের সমাজে প্রতিষ্ঠিত করার দায়িত্ব পালন করেন ফজিলাতুন্নেছা মুজিব।
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালো রাত্রিতে বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করে স্বাধীনতা বিরোধীরা। খুনিদের বুলেটের আঘাতে নির্মমভাবে শহীদ হন ফজিলাতুন্নেছা মুজিব।

এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের কোষাধক্ষ্য ওহিদুজ্জামান, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুরাদ হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন রাসেলসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ নেতৃবৃন্দ।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন হাসনাইন হোসেন মিলন।
অনুষ্ঠান শেষে দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন হাফেজ মোঃ ইকরামুল ইসলাম। #

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *