যশোরে করোনায় আরো ১৬৫ জনের শনাক্ত ; মৃত্যু-৪

সানজিদা আক্তার সান্তনা, যশোর শহর প্রতিনিধি : যশোরে গত ২৪ ঘন্টায় ১৬৫ জনের করোনা শনাক্ত ও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে । মৃতরা জেলার বাঘারপাড়া উপজেলার জহরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব তুহিন (৪০), মণিরামপুর উপজেলার রাজগজ্ঞের শাহাব উদ্দীন (৬২), ঝিকরগাছা নাভারনের আসাদুর রহমান (৫০), চৌগাছা উপজেলার বড় খানপুর গ্রামের আমিল মল্লিক (৫০)। নতুন আক্রান্ত ১৬৫ জনের মধ্যে সদর উপজেলার ১২৯ জন। এছাড়া, কেশবপুরে ৪, ঝিকরগাছায় ১১, অভয়নগরের ২০ ও মণিরামপুরের ১ জন করে রয়েছে।

সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন জানান, বুধবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে ২৯৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৬৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্ডন্ত জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৭৪৭ জন। সুস্থ হয়েছে ৬৭২০ জন। মৃত্যু হযেছে ৯৬ জন। হাসপাতাল আইসোলেশনে ৭৪ জন।
হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আরিফ আহমেদ জানান, গত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতালের ইয়োলোজনে চিকিৎসাধীন তিন জনের মৃত্যু হয়েছে।
করেনা উপসর্গ নিয়ে ১৫জুন রাজগজ্ঞের শাহাব উদ্দীন যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইয়োলোজোনে ভর্তি হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৬ জুন ভোরে তার মৃত্যু হয়েছে।
১৫ জুন সকালে করোনা উপসর্গ নিয়ে নাভারণের আসাদুর রহমান ইয়োলোজোনে ভর্তি হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভোর রাতে তার মৃত্যু হয়েছে।
১৬ জুন সকাল ৮টা ২০ মিনিটে বড় খানপুর গ্রামের আমিল মল্লিক করোনা উপসর্গ ইয়োলোজোনে ভর্তি হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে তার মৃত্যু হয়েছে।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতালের রেডজোনে ২১ জন ভর্তি হয়েছেন । ছাড়পত্র নিয়েছেন ২২ জন। বর্তমান চিকিৎসাধীন ৭৪ জন।

এছাড়া, ইয়োলোজোনে ভর্তি হয়েছেন ২৭ জন। ছাড়পত্র নিয়েছে ২৪ জন। ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ৪৪ জন। এদিকে,

বাঘারপাড়া স্বাস্থ্য বিভাগ জানান, ১৫ দিন আগে তুহিনের জ্বর আসে। তখন স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নেন। কিন্তু জ্বর নিয়ন্ত্রণে না আসায় সপ্তাহখানেক আগে যমেক হাসপাতালে করোনা পরীক্ষায় তার ফলাফল পজেটিভ আসে। এরপর ডাক্তারের পরামর্শে নিজবাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। গত সোমবার প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট শুরু হলে তার শ্যালক রফিকুল ইসলাম তাকে ঝিনাইদহে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। সেখানকার করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাক্তার আখতারুজ্জামান জানান, হাসপাতালে রোগীর চাপ বাড়ছে। তবে, পরিস্থিতি সামাল দিতে তারা প্রস্তুত আছে। করোনা উপসর্গ দেখা দিলে সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাসপাতালে এসে চিকিৎসা নিতে অনুরোধ জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *