মাঘের বৃষ্টিতে জনজীবনে দুর্ভোগ

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি : আগের দিন সকাল থেকেই আকাশে ছিল ঝলমলে রোদ। তাপমাত্রা বেড়েছিল, কমেছিল শীতের তীব্রতাও। কিন্তু রবিবার ভোর থেকে রাজশাহীর আকাশে ঘন কুয়াশা। কমে যায় তাপমাত্রা। সকাল ১০টার দিকে বৃষ্টিও শুরু হয়েছে। এতে পদ্মাপারের মানুষের জীবনে দুর্ভোগ নেমে এসেছে।

মাঘের শুরুতে এই বৃষ্টির কারণে দুর্ভোগে পড়েন অফিসগামী মানুষ। ফুটপাতে যারা হরেক রকমের শীতের কাপড় খোলা আকাশের নিচে বিক্রি করছিলেন তাদের দুর্ভোগ আরেকটু বেশি। তড়িঘড়ি করে দোকান গুটিয়ে নিতে হয়েছে তাদের। এই শীতে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের অনেকেই বৃষ্টিতে ভিজে গিয়ে পড়ে বিপাকে।

সকাল সাড়ে ১০টায় এই প্রতিবেদন লেখার সময় রাজশাহী মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টি হচ্ছিল। তবে নগরীর উপকণ্ঠ বিনোদপুর এলাকায় যেখানে আবহাওয়া অফিস, সেখানে তখনও বৃষ্টি শুরু হয়নি। তাই রেকর্ড হয়নি বৃষ্টির পরিমাণ। আবহাওয়া অফিস বলছে, বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক লতিফা হেলেন জানান, রবিবার সকালে রাজশাহীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগের দিন শনিবার সর্বনিম্ন ছিল ১২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রার পারদ উঠেছিল ২৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

লতিফা হেলেন বলেন, গত ৬ জানুয়ারি রাজশাহীতে চলতি মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৮ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ১৫ জানুয়ারির পর তাপমাত্রা একটু একটু করে বাড়ছিল। তবে এখন বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রা আর বাড়বে না। ফলে বাড়তে পারে শীতের তীব্রতা।

এদিকে রবিবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় হালকা অথবা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে। তবে আগামীকাল সোমবার থেকে এই বৃষ্টি কমে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *