বাল্য বিয়ের ঘটনায় কনের পিতা ও বরের কারাদণ্ড

উত্তম চক্রবর্তী,মণিরামপুর(যশোর)অফিস॥ রাজগঞ্জ এলাকায় বাল্য বিয়ের ঘটনায় কনের পিতাকে ১ মাস এবং বরকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দয়িছেনে ভ্রাম্যমাণ আদালত। পিতা বুলবুল হোসেন (৪৭) মণিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জের এনায়েতপুর গ্রামের বাসন্দিা। অপর ঘটনায় বর মুন্না (২৬) ঝিকরগাছা উপজেলার বাসিন্দা।
সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসান এ আদালত পরিচালনা করেন। কারাদণ্ড প্রাপ্তদের থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের পেশকার আব্দুল মান্নান জানান, সোমবার উপজেলার এনায়েতপুর গ্রামে বাল্য বিয়ের আয়োজনের খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইয়েমা হাসান বিয়ে বাড়িতে হানা দেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে কনে এনায়েতপুর বালিকা বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী শারমিন সুলতানা ও তার মাসহ অন্যরা সটকে পড়েন। কনের পিতা বুলবুল হোসেনকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে কনের বয়স বাড়াতে ভূয়া জন্ম সনদ বানানোর সত্যতা পান আদালত। বাল্য বিয়ের আয়োজন ও ভূয়া জন্ম সনদের দায়ে কনের পিতা বুলবুল হোসেনকে ১ মাসের কারাদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত ।
একই দিন বাল্য বিয়ের খবর পেয়ে উপজেলার সরসকাটি গ্রামের নুরুল ইসলামের বাড়িতে হানা দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এদিনও ওই বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চলছিল। আগের দিন রবিবার নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে বয়স এফিডেভিট করে মুড়োগাছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেণির ছাত্রী নুরজাহানকে ঝিকরগাছা উপজেলার নোয়াীল গ্রামের মুন্নার সাথে বিয়ে দেয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে মুন্নাকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *