বাঘারপাড়ায় (এনজিও সংস্থা) বাচতে শেখার উদ্যোগে বাল্য বিবাহ যৌতুক ও নারী নির্যাতন বিরোধী কর্মশালা অনুষ্ঠিত

সাঈদ ইবনে হানিফ ঃ প্রতিবেদক ঃ সামাজিক অবক্ষয়ের অপর নাম বাল্যবিবাহ নারী নির্যাতন ও যৌতুক প্রথা। সেই দীর্ঘ কাল থেকে অনেক ঢাকঢোল পিটিয়ে এবং বিভিন্ন ভাবে প্রচার প্রচারণা ও প্রতিরোধের চেষ্টা করেও যেন কাজে কোন আসছে না ফলে এর কারন উদ্ঘাটন করে আমাদের কে নতুন ভাবে সামনের দিকে অগ্রসর হওয়া জরুরি। যশোরের বাঘারপাড়ায় বাল্য বিবাহ, নারী নির্যাতন ও যৌতুক বিরোধী এক কর্মশালায় এমনই অভিপ্রায় ব্যাক্ত করেছেন সংশ্লিষ্ট আলোচক গন। গত কাল-৯ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) বেলা ১ টার দিকে, বেসরকারি এনজিও সংস্থা (বাঁচতে শেখার) উদ্যোগে জন স্বচেতনতা মূলুক এ কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন, জামদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ কামরুল ইসলাম টুটুল। উক্ত সভায় আলোচনা করেন, বাঁচতে শেখার, যশোর জেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম। এছাড়া বক্তব্য রাখেন বাঁচতে শেখার প্রকল্প পরিচালক বাবু মৃদুল কান্তি, ইউপি সদস্য মোঃ আবু সাঈদ, মোঃ ওসমান গনি, বাবু বঙ্কিক চন্দ্র। উপস্থিত ছিলেন, ভিটাবল্যা পরিবার পরিকল্পনা কল্যাণ পরিদর্শকা স্বরস্বতী সরকার, জামদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মোঃ ওবায়দুর রহমান, ইউপি সদস্য বাবু আশীষ কুমার বিশ্বাস, মহিলা ইউপি সদস্যা মোছাঃ পাপিয়া বেগম, মোছাঃ ফিরোজা খাতুন, ভারতী রানী সাহা, ইউনিয়ন বিবাহ রেজিস্ট্রার সোয়াইব আহম্মেদ, বাঘারপাড়া উপজেলা হিন্দু বিবাহ রেজিস্ট্রার বাবু আশীষ কুমার দত্ত, ভিটাবল্যা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের মোয়াজ্জেম মোঃ হবিবর রহমান, ইউপি পরিষদের ই-সেবা কেন্দ্রের কর্মকর্তা মোঃ মাহমুদ হাসান, অফিস সহকারী উদ্যোক্তা মোঃ মাহমুদ হোসেন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল সার্ভিসের শিক্ষা নবীশ সহকারি মোঃ আবু তালেব। এবং ইউনিয়নের নারী কর্মী মোছাঃ সীমা খাতুন, মোছাঃ রেশমা বেগম, মোছাঃ নাসিমা বেগম, মোছাঃ শাহানাজ বেগম, রেখা রানী রায়, ফুলিয়া, মোছাঃ শামছুর নাহার, মোছাঃ জাহানারা বেগম, সুষমা ঘোষ। আলোচনায় বক্তারা আরও বলেন, শুধু যৌতুক ও নারী নির্যাতন নয়, আমাদের কে পারিবারিক ও সামাজিক সম্প্রীতির উন্নয়নের দিকে ও নজর দিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *