বাগেরহাট আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে দুদকের হানা

বাগেরহাট প্রতিনিধি : পাসপোর্ট সেবা প্রদানে নানা অনিয়মের অভিযোগে বাগেরহাট আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের হটলাইন ১০৬ নম্বরের ভুক্তভোগীর ফোন পেয়ে সোমবার পাসপোর্ট অফিসে অভিযান চালায় দুদক।

অভিযান চলাকালে দালাল হিসেবে অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাকে এক হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়।

দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষের নেতৃত্বে পাসপোর্ট অফিসে অভিযানকালে বিভিন্ন অনিয়মের প্রমাণ পায়। এসময় মকছুদ আলী আকুঞ্জি নামে হাতেনাতে এক দালালকে আটক করে দুদুক। তিনি বাগেরহাট শহরের দশানী এলাকার বাসিন্দা।

দুদকের উপস্থিতি টের পেয়ে পাসপোর্ট অফিস কেন্দ্রিক অনেক দালাল গা ঢাকা দেন।

অভিযান চলাকালে পাসপোর্ট অফিসের পরিচ্ছন্নকর্মী মোস্তাফিজুর রহমান, আনসার সদস্য মিজানুর রহমান ও আল মামুনের বিরুদ্ধে দালালদের সাথে যোগসাজশে সেবাগ্রহিতাদের হয়রানি ও অবৈধভাবে অর্থগ্রহণের সত্যতা পায় দুদক।

অভিযানে আরো ছিলেন দুদুকের খুলনা কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক নীলকমল পাল, সহকারী পরিদর্শক শ্যমল চন্দ্র সেন, উপসহকারী পরিদর্শক আব্দুস সালাম।

দুদকের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে বাগেরহাট আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের কর্মরতদের বিরুদ্ধে সেবাগ্রহিতাদের কাছ থেকে দালালদের যোগসাজসে অনৈতিকভাবে অর্থগ্রহণসহ নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ। দুদকের হটলাইন ১০৬ নম্বরে এক ভুক্তভোগীর অভিযোগ পেয়ে গতকাল সোমবার বাগেরহাটের পাসপোর্ট অফিসে অভিযান চালানো হয়। এসময় আমরা সেখানে পাসপোর্ট ফর্ম জমা গ্রহণে অযথা হয়রানি, পরিচ্ছন্নতাকর্মীর মাধ্যমে ফর্ম জমা নেয়াসহ বিভিন্ন অনিয়মের প্রমাণ পাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘অনিয়মের দায়ে অভিযুক্ত পাসপোর্ট অফিসের তিন কর্মচারীর বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে আগামী ৭ দিনের মধ্যে দুদককে জানাতে বলা হয়েছে। এছাড়া দালালমুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করার জন্য অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছবিসহ চার্ট টানানো, তিন বছরের বেশি সময় ধরে এই কার্যালয়ে চাকরিতে নিয়োজিত থাকা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বদলিসহ বেশ কিছু সুপারিশ করার হয়েছে। একই সাথে অফিসের অন্য কর্মকর্তাদেরও সতর্ক করেছে দুদুক।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *