জমে উঠেছে বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন – বিএনপিতে একক হলেও আ’লীগে স্বতন্ত্র

সাঈদ ইবনে হানিফঃ জমে উঠেছে বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের উপ- নির্বাচন। আওয়ামীলীগ-বিএনপির মনোনীত প্রার্থী সহ মোট তিন জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। জমা প্রদানের শেষ দিনে তিন প্রার্থীই বাঘারপাড়া নির্বাচন অফিসের সহকারী রিটানিং অফিসারের নিকট মনোনয়নপত্র জমা দেন। তবে বিএনপিতে একক প্রার্থী হলেও ক্ষমতাশীল আওয়ামীলীগে রয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থী। দলীয় নির্দেশনা ভেঙ্আগে আওয়ামীলীগের দ্বিধাবিভক্ত একটি বৃহৎ গ্রুপের সমর্থন নিয়ে এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্যে ক্ষমতা ছেড়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে আলোচনায় উঠে এসেছেন ওই স্বতন্ত্র প্রার্থী । তবে সকলেই ব্যাপক উৎসবমুখর পরিবেশে বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। রোববার বাঘারপাড়া উপজেলা নির্বাচন অফিসে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে তারা পৃথকভাবে মনোনয়নপত্র জমা দেন।সকলের মধ্যেই ছিলো উৎসবের আমেজ।
আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ও প্রয়াত উপজেলা চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজলের স্ত্রী ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথী, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শামছুর রহমান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জহুরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পিএম রেজাউল ইসলাম ওরফে দ্বীন মোহাম্মদ (দিলু পাটুয়ারি)। এর আগে সকালে দলীয় নেতাকর্মীসহ মনোনয়নপত্র জমা দেন বিএনপি দলীয় ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী জামদিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শামছুর রহমান। একইদিন বিকেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়নপত্র জমা দেন জহুরপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান পিএম রেজাউল ইসলাম ওরফে দ্বীন মোহাম্মদ ওরফে দিলু পাটোয়ারী।
সাথীর মনোনীত প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় সাথে ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আতিয়ার রহমান সরদার, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সহকারি অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার বিপুল ফারাজী , দাহাকুলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু মোতালেব তরফদার, নারিকেলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের আবুল সরদার, বাসুয়াড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ সরদার, জামদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম টুটুল, যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম প্রমুখ।
বিএনপির প্রার্থী শামছুর রহমানের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় সাথে ছিলেন পৌর বিএনপির আহবায়ক আব্দুল হাই মনা, উপজেলা যুব দলের আহবায়ক এখলাচ হোসেন, যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আলম টিপু, স্বেছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান, পৌর যুব দলের সদস্য সচিব হিরু আহম্মদ প্রমুখ।
স্বতন্ত্র প্রার্থী জহুরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পিএম রেজাউল ইসলাম ওরফ দ্বীন মোহাম্মদ (দিলু পাটুয়ারি) এর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় সাথে ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক মিজানুর রহমান, সাবেক সাংস্কৃতিক সম্পাদক মুন্সি বাহার উদ্দিন, দাহাকুলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম সরোয়ার , ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্বাস আলী, ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম প্রমুখ। উল্লেখ্য যে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন জমা দেয়ার ক্ষেত্রে বিধি মোতাবেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদ ছেড়ে তাকে পদত্যাগপত্র জমা দিতে হয়েছে। জহুরপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান পিএম রেজাউল ইসলাম ওরফে দ্বীন মোহাম্মদ ওরফে দিলু পাটোয়ারী। এর আগে তিনি ইউএনও অফিসে ইউপি চেয়ারম্যন পদ থেকে পদত্যাগ সংক্রান্ত আবেদন জমা দেন। এদিকে, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন ১১ জন। এর মধ্যে দিলু পাটোয়ারী অন্যতম। যে কারণে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত প্রার্থী হিসেবে লড়তে মনোনয়নপত্র জমা দেন দিলু। জানাগেছে সাবেক যুবলীগ নেতা ও জহুরপুর ইউনিয়নের দু’বারের চেয়ারম্যান দিলু পাটোয়ারী। এছাড়া তার আপন ভাইও আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত।
উল্লেখ, গত ৭ সেপ্টেম্বর হবিগঞ্জে এক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা নাজমুল ইসলাম কাজল। এরপর এ পদটি শূন্য ঘোষণা করে এ পদে নির্বাচনের লক্ষ্যে তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১০ ডিসেম্বর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *