কোভিড-১৯ এর ‘ডেল্টা ভেরিয়েন্টের’ সংক্রমন ঠেকাতে বেনাপোল বন্দরে অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েন

স্টাফ রিপোর্টার : কোভিড-১৯ এর ‘ডেল্টা ভেরিয়েন্টের’ সংক্রমন ঠেকাতে ভারতীয় ট্রাক চালকরা যাতে বেনাপোল বন্দরের বাইরে যেতে না পারে সেজন্য বন্দর এলাকায় অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে,বন্দরের নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মীদের পাশাপাশি তারাও দিনরাত টহল দিচ্ছেন বলে জানান বন্দর কর্তৃপক্ষ।

এদিকে সীমান্তের অবৈধ পথে যাতে কেউ পারাপার হতে না পারে সেজন্য সীমান্তে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি।

যশোর-৪৯বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ সেলিম রেজা বলেন,বেনাপোল বন্দর ও তার আশেপাশে করোনা প্রতিরোধে স্পেশাল কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। ভারতীয় ট্রাক চালকরা যাতে বন্দরের বাইরে খোলামেলা ঘুরাঘুরি করতে না পারে সেজন্য বিজিবির কড়া নজরদারি রয়েছে।

“বেনাপোল সীমান্তের স্পর্শকাতর এলাকাগুলোকে চিহ্নিত করে চৌকিতে অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করনে মাইকিং করা,মসজিদে মসজিদে প্রচার ও এলাকায় অপরিচিত কাউকে দেখলে বিজিবিকে খবর দেওয়ার ব্যাপারে জনসাধারণকে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।”

‘বন্দর অভ্যন্তরে বন্দরের নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মীদের পাশাপাশি বন্দরের বাইরের সড়ক মহাসড়কে বিজিবি দিনরাত টহল দিচ্ছেন’ বলে জানিয়ে বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন তরফদার বলেন, প্রতিদিন পেট্রাপোল বন্দর থেকে তিনশ থেকে সাড়ে চারশ ট্রাক আমদানি পণ্য নিয়ে বেনাপোলে ঢোকে। আবার বেনাপোল দিয়ে দুই’শ থেকে তিনশ’ ট্রাক রপ্তানি পণ্যচালান যায় ভারতে।

“দু’দেশের মধ্যে লকডাউন থাকলেও বন্দরে স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ন্ত্রণে সতর্ক রয়েছি। ভারতীয় ট্রাকে জীবাণুনাশক স্প্রে করা হচ্ছে ও থার্মাল স্ক্যানারে চালক-সহকারিদের তাপমাত্রা যাচাইয়ের পরই তাদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।বন্দর অভ্যন্তরে তারা যাতে খোলামেলা চলাচল করতে না পারে সে জন্য নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *