স্ত্রী সন্তান ও শ্যালিকা ঘটনাস্থালেই নিহত, হাসপাতালে লিটন

নীলফামারী প্রতিনিধি : নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে মোটরসাইকেল ও নৈশ কোচের সংঘর্ষে একই পরিবারের তিন জন নিহত হয়েছেন। রবিবার (২ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮টার দিকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কার্যালয়ের সামনের সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কিশোরগঞ্জ থানার ওসি হারুন-অর রশিদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

নিহতরা হলেন, রুমা বেগম (২৪) ও তাদের চার বছরের সন্তান রাহিম এবং বোন আদুরী বেগম (১৭)। এ ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক লিটন মিয়া (৩০) আহত হয়েছেন। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমল্পেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, লিটন মিয়া রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার দক্ষিণ গজঘণ্টা গ্রামের বাড়ি থেকে স্ত্রী রুমা ও ছেলেকে নিয়ে মোটরসাইকেকে করে কিশোরগঞ্জ উপজেলার রনচন্ডি ইউনিয়নের মাঝাপাড়া গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে আসেন। রাতে সেখান থেকে একই উপজেলার পুটিমারী ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামে মামা শ্বশুর সাজ্জাদুল মিয়ার বাড়িতে দাওয়াতে স্ত্রী, সন্তান ও শ্যালিকাকে নিয়ে যাচ্ছিলেন। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কার্যালয়ের সামনে কুমিল্লাগামী নৈশ কোচ উল্লাস পরিবহনের (চট্টগ্রাম ক-১১-০২৬১) সঙ্গে সংঘর্ষ ঘটে।

সোমবার (৩ আগস্ট ) সকালে কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন-অর রশিদ বলেন, লিটন মিয়া প্রাণে বেঁচে গেলেও তার স্ত্রী, সন্তান ও শ্যালিকা ঘটনাস্থালে নিহত হয়। মরদেহ উদ্ধার ও নৈশ কোচটিকে আটক করা হয়েছে। তবে চালক হেলপার পালিয়ে গেছে। এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *