রসুলপুর গ্রামের এক ব্যক্তির ভোগদখলীয় সম্পত্তি জবর দখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

মণিরামপুর(যশোর)অফিস॥ যশোরের মণিরামপুরের রসুলপুর গ্রামের এক নিরীহ ব্যক্তির ভোগদখলীয় পৈত্রিক সম্পত্তি অবৈধভাবে দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে একটি কুচক্রি মহল। এমনকি ঐ সম্পত্তিতে লাগানো বিভিন্ন প্রজাতির বড় বড় গাছ কেটে নেওয়ার চেষ্টা করছে ও ঘর নির্মানের পায়তারা চালাচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবী করেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মাষ্টার আব্দুল জলিল, মাষ্টার মিজানুর রহমান, সমাজ সেবক নুরুল ইসলাম, হাফিজুর রহমান, আব্দুল হামিদ, আব্দুর রহমান, আব্দুল মান্নানসহ অনেকেই।
শনিবার বিকেলে নিজ বাড়িতে লিখিত বক্তব্যে নিরীহ ব্যক্তি ইব্রাহিম হোসেন দাবী করেন, উপজেলার চালুয়াহাটী ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের হবির মোড় নামক স্থানে দুটি রাস্তা সংযুক্ত রসুলপুর মৌজার ১২১ নং খতিয়ানের ২১২ নং হাল দাগের ৫৪ শতক জমির মধ্যে আমার অংশিদারিত্ব প্রাপ্য জমি আমি প্রায় দেড় যুগ ধরে ভোগ দখল করে আসছি। বর্তমানে ঐ জমিতে আমার লাগানো বড় বড় রেন্টি গাছ, নারিকেল গাছ, আম গাছ, বাঁশ ঝাড়সহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ ও একটি দোকানঘর রয়েছে। যা গ্রামের সবাই জানে। সম্প্রতি ঐ জমিতে আমার ছেলে সাঈদ হাসান মাহমুদ বসত বাড়ি নির্মান করবে বলে সুবিধার্থে ঐ জমি গত ১১-২-২০২০ ইং তারিখে তার নামে আমি রেজিষ্ট্রি করে দিয়েছি। কিন্তু গ্রামের নামধারী চক্রান্তকারী আব্দুল খালেক, বারিক, সাত্তার, কাদেরসহ ৫/৬ জন আমাকে হেনাস্তা করার জন্য কুট কৌশল অবলম্বন করে আমার জমির পাশের পতিত জমির শরিকানা মালিক আমার ভাগনেদের নাম ভাঙ্গিয়ে নাটকীয় কায়দায় বায়না সুত্রে জমির মালিক সেজে আমার ভোগদখলীয় জমির উপর সাইনবোর্ড তুলে দেন আব্দুল খালেক। শুধু এই নয় তারা জমির উপর থাকা দোকান ঘর ভেঙ্গে দেওয়ার চেষ্টা করছে ও আমার লাগানো বড় বড় গাছ গুলি বিক্রি করার পায়তারা চালাচ্ছে। এ ছাড়া জোর পূর্বক জমির উপর ঘর নির্মান করে জবর দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে তারা। তাই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জোর দাবী করছি ঐ চক্রটি যেন আমার দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় সম্পত্তির উপর লাগানো ফল ফলাদী গাছসহ বড় বড় গাছ ক্ষতি করতে না পারে এবং অবৈধভাবে জমিতে দখল না আসতে পারে তার সুব্যবস্থা করতে প্রশাসনের প্রতি আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *