যশোরের অপহৃত সাংবাদিককে উদ্ধারের দাবি তার স্ত্রীর

যশোর প্রতিনিধি : যশোরের অপহৃত সাংবাদিক সাইদুর রহমান সোহেল গত চারদিনেও উদ্ধার হয় নি। সুস্থ শরীরে তার ফেরতের দাবি জানিয়েছেন স্ত্রী শ্রাবণী আক্তার। শুক্রবার সকালে যশোর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান।

শ্রাবণী আক্তার সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেন, সাইদুর রহমান সোহেল যশোর থেকে প্রকাশিত দৈনিক সমাজের কথা পত্রিকার খুলনা বিভাগীয় চিফ রিপোর্টার এবং সিএনএন বাংলা টিভির রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত আছেন। এছাড়া যশোর উপশহরের রজনীগন্ধা তেল পাম্প এলাকায় একটি অটোমোবাইল সার্ভিসিং সেন্টার রয়েছে তাদের।

গত ১০ অক্টোবর দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তার স্বামীর মোবাইলে তামান্না নামে এক অজ্ঞাত পরিচয় নারী কল করে জানান, তার স্বামী দীর্ঘ ২০ বছর যাবৎ বিদেশে থাকে এবং কিছু লোক তাকে ব্ল্যাকমেইল করছে বলে জানান এবং এ বিষয়ে একটি নিউজ করার অনুরোধ করেন। এসময় সোহেল তাকে থানায় জিডি করার এবং প্রেসক্লাব যশোরে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

১২ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ফের ওই মহিলা ফোন করে জানান, থানায় জিডি করা হয়েছে। তার সঙ্গে জরুরি ভিত্তিতে দেখা করার অনুরোধ করেন। এসময় সোহেল তার অটোমোবাইল সার্ভিসিং সেন্টারে আসতে বলেন। সোহেল তার অফিস সহকারী রাকিবুল ইসলাম, ক্যামেরাম্যান মিঠুন চক্রবর্তীকে সঙ্গে করে নিজস্ব প্রাইভেটকারে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মোবাইল সার্ভিসিং সেন্টারে যান। এসময় তামান্না নামে ওই মহিলা এসে তার সঙ্গে কথা বলার এক পর্যায়ে একটি সিলভার রঙয়ের হাইএক্স মাইক্রোবাসে অজ্ঞাত পরিচয় ৭/৮ জন সাদা পোশাকধারী এসে সোহেলকে তুলে নিয়ে যশোর শহরের দিকে চলে যায়। এরপর থেকে তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। এরপর যশোর কোতয়ালি মডেল থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। এছাড়া প্রশাসনের বিভিন্ন জায়গায় অভিযোগ করা হলেও গত ৪/৫ দিন ধরে তার কোন সন্ধান পাওয়া যায় নি।

চার বছরের সন্তান মুসাইবা আয়াত অরিনকে কোলে নিয়ে শ্রাবণী আক্তার জানান, মেয়েকে নিয়ে তিনি খুব কষ্টে আছেন। দ্রুত তার স্বামীকে সুস্থ শরীরে ফেরতের দাবি জানান শ্রাবণী আক্তার। এসময় সোহেলের বোন আয়েশা খাতুন উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে দৈনিক সমাজের কথা পত্রিকার বার্তা সম্পাদক, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মিলন রহমান জানান, সাইদুর রহমান সোহেল দৈনিক সমাজের কথা পত্রিকার খুলনা ব্যুরো অফিসে কর্মরত আছেন। তাকে দ্রুত উদ্ধার করার জন্য প্রশাসনকে আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

এদিকে কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাসনিম আহম্মেদ  জানান সাংবাদিক সোহেলকে অপহরণের বিষয়ে তদন্ত অব্যাহত আছে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *