মণিরামপুরের কৃষক নজরুল হত্যাকান্ডের দুই মাস অতিবাহিত হলেও আসল রহস্য উৎঘাটন হয়নি

আনিছুর রহমান : মণিরামপুরের তাজপুর গ্রামের কৃষক নজরুল হত্যাকান্ডের দুই মাস অতিবাহিত হলেও মামলার কোন অগ্রগতি দেখা যাচ্ছেনা বলে গ্রামবাসী ও বাদী পরিবারের মধ্যে চরম উৎকন্ঠা বিরাজ করছে। অভিযোগ উঠেছে একটি মহল আপন দুই ভাইয়ে চাকুরী রক্ষার্থে উপরি মহলে কঠিন মিশন চালাচ্ছে। যার কারনে থমকে গেছে মামলার আসল রহস্য উৎঘাটনের কার্যক্রম। আদৌ মামলার প্রকৃত ঘটনা আলোর মুখ দেখবেকি না তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করছে গ্রামেবাসী। ফলে প্রকৃত খুনি ধরাছোয়ার বাইরে রয়ে যাবে বলে এমনটি আশংখ্য করছে তারা।
জানা যায়, নিরীহ কৃষক নজরুল হত্যাকান্ডের দুই মাস অতিবাহিত হলেও আসল রহস্য উৎঘাটন না হওয়ায় গ্রামবাসী ও বাদী পরিবারের মাঝে চরম ক্ষোভের জম্ম নিয়েছে। ঘটনার দিন সন্দেহ ভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একই গ্রামের আসাদুল, জব্বার ও মেহেদীকে নিয়ে যায় থানা পুলিশ। নিহতের স্ত্রী পারুল জানায় ধৃত ৩ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনকে আসামী করে পুলিশ মনগড়া মামলা লিখে আমাকে দিয়ে স্বাক্ষর করে নেয়। সেই থেকে গ্রামে চলতে থাকে নজরুল হত্যাকান্ড নিয়ে একে অপরের আলোচনা সমোলচনার ঝড়। ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত ধৃত আসামী আসাদুলের ভাই আশিকুরের নাম ইতিপূর্বে প্রিন্ট মিডিয়ায় বার বার উঠে আসলেও এখনও পর্যন্ত আটক হয়নি সে। ঘটনার পরের দিন থেকে আশিকুর পলাতক রয়েছে। গ্রামবাসী ধারনা করছে আশিকুর আটক হলেই এই হত্যাকান্ডের জট খুলবে। এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাহাবুল আলম তদন্ত করে সকল বিষয় অবগতি হলেও অজ্ঞাত কারনে তাকে আটক করতে পারছেনা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। তা ছাড়া আরো বলছে, রহস্যজনক ভুমিকার কারনে হয়তোবা নিরাপরাধ ব্যক্তিরাই জেলের ঘানি টানিয়ে আসছে। প্রশাসন আসল রহস্য উঘাটন করতে পারলেই হয়তো তারা সাধারন জীবন ফিরে পেতে পারে। এবিষয়ে দু:খ প্রকাশ করে অনেকেই প্রতিনিধিকে বলছে, আসামী ৩ জন হয়তো এই ঘটনার সাথে জড়িত নাও থাকতে পারে। পুলিশ ইচছ্া করলে আসল খুনিকে খুজে বের করতে পারে। আমরা আসা করি পুলিশ সেটাই করুক। আমরা চাই প্রকৃত খুনি যেই হোক সেই শাস্তি পাক। এদিকে নিহতের পরিবার জানাই, হত্যাকান্ডের সঠিক বিচার তো দুরের কথা আমরা এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। অপরদিকে হত্যাকান্ডের আসল রহস্য এখনও পর্যন্ত উৎঘাটন করতে পারেনি। ফলে গ্রামে গুঞ্জন চলছে যে, এই হত্যাকান্ডের ভিতরে জড়িয়ে রয়েছে নানান রহস্য। যার কারনে প্রশাসন রয়েছে নিরব ভুমিকায়। তবে হত্যাকান্ডের আসল তথ্য উৎঘাটন করে প্রকৃত খুনিকে শাস্তি প্রদান করতে প্রশাসনের উপরি মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন গ্রামবাসী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *