বাঘারপাড়ায় উপ-নির্বাচন : আওয়ামীলীগের দু গ্রুপের দন্দ চরমে “মামলা পাল্টা মামলা

সাঈদ ইবনে হানিফঃ বাঘারপাড়া (যশোর) : যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগের দু গ্রুপের দন্দে সমগ্র উপজেলায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। গত মঙ্গলবার ইন্দ্রা বাজারে সংঘঠিত মারামারির জেরে ঐদিনই আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সহ কর্মীদের নামে মামলা হওয়ার জেরে ইউপি চেয়ারম্যান, শিক্ষক, ব্যংক কর্মকর্তা, যুবলীগ নেতা, ব্যবসায়ীসহ নৌকা প্রার্থীর ২৫ নেতাকর্মীর নামে পাল্টা মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে স্বতন্ত্র (আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী) প্রার্থী পিএম রেজাউল ইসলাম দ্বীন মোহাম্মদ (দিলু পাটোয়ারী) বাদী হয়ে বাঘারপাড়া থানায় এ মামলা করেন।

মামলায় যাদেরকে আসামী করা হয়েছে তাদের অধিকাংশই ঘটনাস্থলে ছিলেন না বলে যুবলীগ নেতা জুলফিক্কার আলী জুলাই দাবী করেন। তিনি আরো জানান, মামলার ৩ নং আসামী খুলনা কৃষি ব্যাংকের কর্পোরেট শাখায় চাকুরি করেন তাকেও আসামী করা হয়েছে। পার পাননি সংঘর্ষে গুরুতর আহতরাও।

মামলায় আসামী করা হয়েছে, প্রয়াত নাজমুল ইসলাম কাজলের ছোট ভাই ও নৌকা প্রতিকের প্রার্থী ভিক্টোরিয়া পারভিন সাথীর দেবর ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম টুটুল, রামনগর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে হান্নান, ইন্দ্রা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার শহিদুল্লাহ’র ছেলে সাজ্জাদ হোসেন, জাফরের ছেলে জাকির, মৃত জহুরুল ইসলামের ছেলে শরিফুল, ফেরদৌস, আব্দুর রব ও জাকারিয়া, মুজিবর মোল্যার ছেলে ইলিয়াস, জাফরের ছেলে তরিকুল, আব্দুল মজিদের ছেলে হানিফ, আব্দুর রহমান মোড়লের ছেলে মুকুল, মৃত মহাতাব মোল্যার ছেলে জাহাঙ্গীর, আব্দুল্যা খন্দকারের ছেলে মিলন ও খন্দকার মেহেদি, সুলতান মোল্যার ছেলে মাসুদ, মালঞ্চি গ্রামের মকবুল কারিগরের ছেলে বাবর আলী, দোহাকুলা গ্রামের কাশেম মোল্যার ছেলে যুবলীগ নেতা নজরুল ইসলাম, হোসেন আলী মোল্যার ছেলে যুবলীগ নেতা জুলফিক্কার আলী জুলাই, মোশারেফ হোসেনের ছেলে শিমুল হোসেন, ভিটাবল্লা গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে কামাল, সদুল্যাপুর গ্রামের নূর মোহাম্মদের ছেলে মাহমুদ, মহিরণ গ্রামের মৃত মোনছের মোল্যার ছেলে কাছেদ আলী, মৃত নাদের হোসেন মোল্যার ছেলে কাছেদ আলী, তোরাব আলীর ছেলে হিরু আহম্মেদ।

মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেছেন, গত মঙ্গলবার রাতে ইন্দ্রা বাজারে পৌঁছালে আসামীরা তার গাড়ির গতিরোধ করে গাড়ি ভাংচুর করে দুই লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়।

মামলা রুজুর বিষয়ে বাঘারপাড়ার থানার ওসি সৈয়দ আল মামুন নিশ্চিত করেছেন। যে মামলা নং-১৫

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *