বাঁকড়ার মানুষের ভালোবাসার আরেক নাম দানবীর প্রবাসী ইব্রাহিম    

আনিছুর রহমান মনিরামপুর  (যশোর) ঃঃ-যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়া ইউনিয়নের দরিদ্র অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ধারাবাহিক সাহায্যের অবদান রেখে চলেছেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও দানবীর প্রবাসী ইব্রাহিম হোসেন।

এছাড়া তিনি ইউনিয়নের হত দরিদ্র পরিবার সহ বিভিন্ন ধর্মিয় প্রতিষ্ঠানে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।
বাঁকড়া ইউনিয়ন ঘুরে বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, ইউনিয়নের বড় খোলসী গ্রামের ইমান আলী দেওয়ানের ছেলে ইব্রাহিম হোসেন বিগত বিশ বছর ধরে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করে আসছেন।

তিনি অঢেল অর্থ সম্পদের মালিক  হওয়ায় প্রবাসে থেকেও গত কয়েক  বছর পূর্বে ইউনিয়নের দরিদ্রর অসহায় মানুষের পাশে থেকে সেবা করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

সেই থেকে একের পর এক অসহায় মানুষের সাহায্য করে আসছে।ইউনিয়নের সকল ঈদগাহ মসজিদ ও মাদ্রাসায় আর্থিক অনুদান প্রদান করেছেন।

এদিকে মহামারী নোভেল করোনার মাঝে ইউনিয়নের ২৬৭০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন।

রমজানের মাঝে ইউনিয়নের  ২৭৮০ পরিবারের মাঝে ইফতারি সামগ্রী বিতরণ করেছেন।

এছাড়া নিজস্ব অর্থায়নে  বড় খোলসী গ্রামের এতিম খোকন ও ভোলার চার রুম বিশিষ্ট ছাদের ঘর নির্মাণ করে দিয়েছেন।
একই ভাবে উজ্জ্বলপুর গ্রামের আবদুল গফফারের বসত ঘরের জন্য ত্রিশ হাজার টাকার টিন ক্রয় করে দিয়েছেন।

প্রবাসে অবস্থানকালে ইব্রাহিম হোসেন  মালায়শিয়া ও তুরস্কের কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করে  ইউনিয়ন বাসীর জন্য প্রচুর গভীর ও অগভীর নলকূপ অনুমোদন করেন।

তারই ধারাবাহিকতায় আজ পর্যন্ত   ইউনিয়নের ২১ টি টিউবওয়েল বসানোর কাজ শেষ হয়েছে। অতি দ্রুত  ইউনিয়নের দরিদ্রদের মাঝে আরও তিনশোটি টিউবওয়েল  ও একশোটি গভীর নলকূপ স্থাপনের প্রক্রিয়া চলছে ।

এদিকে প্রবাসী ইব্রাহিম সম্পর্কে জানতে চাইলে এতিম খোকন হোসেন জানান  আমার পিতার মৃত্যু পর আমরা এতিম হয়ে পড়ায় আমাদের মাথা গোজার ঠায় না থাকায় এমন সময় আমাদের পাশে  এসে দাঁড়ান দানবীর ইব্রাহিম ভাই।

তিনি নিজের কষ্টে অর্জিত  অর্থ ব্যায় করে আমাদের দুই ভাইয়ের জন্য চার রুম বিশিষ্ট একটি ছাদের বাড়ি নির্মান  করে দিয়েছেন।

এবিষয়ে  কথা হয় ইউনিয়নের উজ্জ্বলপুর গ্রামের পূর্বপাড়া জামে মসজিদের ইমাম আবু দাউদ ও একই গ্রামের দাখিল মাদ্রাসার সুপারের সাথে তারা প্রতিনিধিকে বলেন, ইব্রাহিম ভাই কয়েক বার আমাদের প্রতিষ্ঠানে প্রচুর পরিমাণ অর্থ দিয়ে সহয়ত  করে।

একই সুরে কথা বলেন আলি পুর সরদার পাড়া জামে মসজিদের তত্বাবধায়ক বিকুল সরদার, বাকড়া বাজার কওমি মাদ্রাসার বড় মসজিদের  তত্বাবধায়ক হাজী মতিয়ার রহমান ও হাজী মিজানুর রহমান, মুকুন্দপুর গ্রামের ঈদগাহ কমিটির সভাপতি মাষ্টার আঃ সাত্তার।

অপারদিকে বাঁকড়া ইউনিয়নের সব প্রান্তের অলিতে গলিতে প্রবাসী ইব্রাহিম সম্পর্কে জানতে চাইলে সাধারণ মানুষ তাকে দানবীর বলে আখ্যায়িত করেন।

ইউনিয়নের অধিকাংশ   মানুষের চাওয়া  সে এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হোক।

কথা হয় দানবীর ইব্রাহিম হোসেনর সাথে তিনি প্রতিবেদককে জানান আমার ছোটবেলার শখ মানুষের পাশে থেকে সেবা করে যাওয়ার।
আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আমার সেই আশা পূর্ণ করেছে।
এবং যতদিন বেঁচে থাকবো ইনশাল্লাহ এভাবেই সাধারণ মানুষের সেবা করে যাবো।

একপর্যায়ে  প্রতিবেদকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন ইউনিয়নবাসী যদি চাই তাহলে আগামী বাঁকড়া ইউপি নির্বাচনে আমি  চেয়ারম্যান প্রার্থী  হিসেবে নির্বাচন করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *