নড়াইল দলিল লেখক সমিতির সভাপতি নামে দুই লাইসেন্স !

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলে দলিল লেখক সমিতির সভাপতি সাহিদুল হক সাহিদের বিরুদ্ধে নাম পরিবর্তন করে প্রতারনার মাধ্যমে লাইসেন্স নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় জেলা রেজিস্ট্রার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন শহরের মহিষখোলা এলাকার লিটন শেখ নামে এক ব্যক্তি।

লিখিত অভিযোগে জানাগেছে, নড়াইল সাবরেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক নড়াইল সদর উপজেলার দক্ষিন বাগডাঙ্গা গ্রামের নূরুল হক মোল্যার ছেলে মোঃ সাহীদুল হক মোল্যার নামে ১৯৯৪ সালের ১৬ই জুলাই দলিল লেখার লাইসেন্স ইস্যু করা হয় যার নম্বর- ৬। অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ২০০৭ সালে নড়াইল/বিঃসাঃ/০১/০৬/৪৩(৫) নং স্মারকে লাইসেন্স বাতিল করা হয়। নিয়ম রয়েছে বাতিলকৃত লাইসেন্স ফিরে পেতে উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করতে হবে। কিন্তু তিনি আবেদন না করে নামের সামান্য পরিবর্তন করে নড়াইল সদর উপজেলার বাগডাঙ্গা গ্রামের নূরুল হকের ছেলে মোঃ সাহিদুল হক নাম দিয়ে পুনরায় ২০০৯ সালের ৬ই জুলাই লাইসেন্স করেন। যার নম্বর-৯১। নিবন্ধন অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের ভূল বুঝিয়ে প্রতারনার মাধ্যমে গ্রাম দক্ষিন বাগডাঙ্গার স্থলে শুধু বাগডাঙ্গা এবং নামের ক্ষেত্রে মোঃ সাহীদুল হক মোল্যার স্থলে মোঃ সাহিদুল হক নাম ব্যবহার করে পুনরায় লাইসেন্স পান। বর্তমান মোঃ সাহিদুল হক নড়াইল সাবরেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছে। বিভিন্ন অনিয়মের আশ্রায় নিয়ে দলিল লেখার লাইসেন্স নিয়ে জমির দলিল করার ক্ষেত্রে প্রভাব বিস্তার করছেন। দলিল রেজিস্ট্রির ক্ষেত্রে জমির শ্রেনী পরিবর্তনসহ বিভিন্ন অনিয়মের আশ্রায় নেন তিনি। সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর শুরু করেছেন অফিসের বিভিন্ন সরকারি কাজের খবরদারিও। এ ঘটনায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা রেজিস্ট্রারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ভূক্তভোগী।
অভিযুক্ত সভাপতি মোঃ সাহিদুল হক বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদীত। আমার আবেদনের পরিপেক্ষিতে বৈধভাবে ২০০৯ মহা পরিদশক,নিবন্ধন কর্তৃপক্ষ-ঢাকা, বাংলাদেশ পূণরায় আমাকে লাইসেন্স দিয়েছে।
জেলা রেজিস্ট্রার মোঃ আব্দুর রহিম লিখিত অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আবেদনকারী ও দলিল লেখক সমিতির সভাপতি মো.সাহিদুল হককে তদন্তের জন্য নোটিশ করা হবে। এছাড়া তাদের স্বপক্ষের উত্থাপিত কাগজপত্র পর্যালোচনার পর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *