দুদিন পিছিয়ে ঢাকা সিটি নির্বাচন ১ ফেব্রুয়ারি

নিজস্ব প্রতিবেদক : পূজার থাকায় অবশেষে দুদিন পেছানো হলো ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন। ৩০ জানুয়ারির পরিবর্তে ১ ফেব্রুয়ারি এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবার রাত সোয়া আটটার দিকে সাংবাদিকদের এ ব্যাপারে ব্রিফ করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

নির্বাচন কমিশন ৩০ জানুয়ারি ঢাকার দুই সিটিতে ভোটগ্রহণের তফসিল ঘোষণা করে। তবে ওইদিন সরস্বতী পূজা থাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে শুরু থেকেই আপত্তি জানানো হয়। এমনকি তা উচ্চ আদালত পর্যন্ত গড়ায়। তবে আদালত রিট খারিজ করে দেয়ায় ৩০ জানুয়ারি ভোটগ্রহণের ব্যাপারে অনড় অবস্থানে থাকে নির্বাচন কমিশন।

এদিকে ভোট পেছানোর দাবিতে আমরণ অনশন শুরু করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্র। এদিকে হিন্দু সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকেও সর্বোচ্চ আদালতে বিষয়টি নিয়ে আপিল করা হয়। রবিবার এ ব্যাপারে শুনানি হওয়ার কথা ছিল।

আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ রাজনৈতিক দলগুলোও নির্বাচনের তারিখ পাল্টানোর পক্ষে মত দেয়। এর মধ্যেই শনিবার বিকালে ছুটির দিনে জরুরি বৈঠকে বসে নির্বাচন কমিশন। কয়েক ঘণ্টা বৈঠকের পর নির্বাচন পেছানোর ঘোষণা আসে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার জানান, ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা থাকায় তাদের পক্ষে ভোট পেছানো অসম্ভব ছিল। এজন্য তারা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিকে পরীক্ষা পেছানোর অনুরোধ করেন। তাদের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে পরীক্ষা দুই দিন পেছানোর সিদ্ধান্ত আসার পর ভোট পেছানোর ঘোষণা দেয় নির্বাচন কমিশন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *