জমে উঠেছে বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সী মালিক সমিতির নির্বাচন

স্টাফ রিপোর্টার ঃ মহামারী করোনার কারণে বন্ধ হওয়া বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সী মালিক সমিতির ”ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন ০৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব শাহাদত হোসেন জানান, গত বছরের ২৮ মার্চ বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সী মালিক সমিতির নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল, কিন্ত বিশ্বভ্যাপী ছড়িয়ে পড়া করো ভাইরাসের কারণে সরকারি নির্দেশে ওই সময় নির্বাচন স্থগিত করে দেওয়া হয়।
পরবর্তিতে দেশের পরিবেশ পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় পুনরায় নির্বাচনের দিনক্শণ ৬ মার্চ ঘোষণা করা হয়েছে। বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সী মালিক সমিতির মাধ্যমে আমদানি ও রপ্তানিকারকরা বিভিন্ন এলাকা থেকে পণ্যচালান বন্দরে আনা নেওয়ার কাজটি সম্পন্ন করে ট্রান্সপোর্ট এজেন্সী। এাঁ বেনাপোল বন্দরের দ্বিতীয় বৃহত্তম ব্যবসায়ি সংগঠন।
এদিকে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষলার পর থেকেই প্রার্থীরা নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। ভোটারদের কাছে ভোট ভিক্ষা করছেন। এবার বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সী মালিক সমিতির নির্বাচনে ৫২৭ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।
নির্বাচন কমিশনের সদস্য কাজী শাহাজাহান সবুজ গ্রামের সংবাদকে বলেন, এই নির্বাচনে দু’টি প্যানেলে ২২ জন প্রার্থী ও একজন স্বতন্দ্র প্রর্থী অংশ নিয়েছেন। প্যানেল দু’টি হলো : ঐক্য পরিষদের ব্যানারে ”রবি-আজিম পরিষদ ও সমমনা পরিষদের ব্যানারে ”সনি-রিপন পরিষদ।
৬ মার্চ শনিবার সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বেনাপোল বন্দরের ২নং গেটের সামনে অবস্থিত মালিক সমিতির নিজস্ব ভবনে ভোট গ্রহন চলবে।
’পরিবর্তনের লক্ষ্যে নতুনের সমন্বয়ে’ এই শ্লোগানে কাজ করছেন ’রবি-আজিম ঐক্য পরিষদ। এই পরিষদের সভাপতি প্রার্থী রবিউল ইসলাম রবি বলেন, মালিক সমিতির নির্বাচনে এবারই প্রথম সভাপতি প্রার্থী হিসাবে আমি নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। এই প্যানালের সেক্রেটারি আজিম উদ্দিন গাজীসহ অন্যরা আগের কমিটিতে নিষ্ঠার সাথে কাজ করেছেন। জয়ের ব্যাপারে আমরা আশাবাদী। আমরা আবারও সদস্যদের জন্য ভালো কিছু করতে চাই।
পরিবর্তনের লক্ষ্যে নব নেতৃত্বের পক্ষে, যেখানে সমাস্যা সেখানেই সমাধান এই শ্লোগানে কাজ করছেন ”সনি-রিপন” পরিষদ। এই পরিষদের অর্থ সম্পাদক বিপ্লবুর রহমান বিপ্লব বলেন, আগে বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সী মালিক সমিতিতে অনেক অনিয়ম হয়েছে। তাই আমরা সমিতির সদস্যদের ন্যায্য অধিকার ফিরিয়ে দিতে ’সনি-রিপন পরিষদ’ গঠন করেছি। এ নির্বাচনে আমরা জয়ী হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী। আমরা জয়ী হলে সদস্যদের সুখে দুখে সার্বক্ষনিক পাশে থাকবো। সেইসাথে তাদের চাওয়া পাওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাবো।
উভয় প্যানেলের সদস্যরা সুষ্ঠ নির্বাচনের আশা নিয়ে বলেন, ফলাফল যেটাই হোক আমরা মেনে নিয়ে সকলে একসাথে একই লক্ষ্যে কাজ করতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *