আলমডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় ডেন্টিষ্ট আবুল কালাম, স্ত্রী ও ছেলে আহত : চিকিৎসা শেষে বাড়ী এসে মৃত্যুবরন

 আলমডাঙ্গা অফিসঃ আলমডাঙ্গা স্টেশন রোডে ছেলে,স্ত্রী সহ মটর সাইকেলে ঘুরেবেড়ানোর সময় একটি চলন্ত মাইক্রো বাস তাদের ধাক্কা দিলে ছিটকে পড়ে মারাত্বক জখম হলে, মটর সাইকেল চালক আবুল কালাম, তার স্ত্রী ও ছেলেকে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা করান। এখানে আবুল কালমাের অবস্থার অবনতি হলে তাকে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন। চিকিৎসা শেষে বাড়ী নিয়ে আসে। গতকাল ভোর ৪ টার দিনে নিজ বাস ভবনে ইন্তেকাল করেন।ইন্নালিল্লাহি——- রাজিউন।মৃত্যকালে তার বয়স হয়েছিল (৩৫)।
জানাগেছে, গত ২৪ জুন বিকেলের দিকে আনান্দধামের জনপ্রিয় ডেন্টিস্ট, আবুল কালাম আজাদ আলমডাঙ্গা স্টেশন রোডে ছেলে স্ত্রীসহ মটর সাইকেলে ঘুরে বেড়ানোর সময় একটি চলন্ত মাইক্রো তাদের ধাক্কা দেয়। এতে মারাত্মক ইঞ্জুরি হলে তাদের প্রথমে ফাতেমা ক্লিনিকে ভর্তি করে। সেখানে পায়ের ব্যান্ডেজ করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। কিন্ত অবস্থা অবনতি হলে তাদেরকে কর্তব্যরত চিকিৎসক কুষ্টিয়ায় রেফার্ড করে।
জানাগেছে, আলমডাঙ্গা যুবলীগ নেতা গবিন্দপুর গ্রামের ডিটোর জামাই ও আনন্দধামে বসবাস রত চরপাড়া গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে ডেন্টিস্ট আবুল কালাম আজাদ, তার স্ত্রী জেসমিন আক্তার ও ছেলেকে সাথে মটর সাইকেল যোগে ঘুরতে গিয়েছিল। বিকেলের দিকে স্টেশন রোডে মটর সাইকেল নিয়ে যাবার সময় মৃত ছয়ফর মিয়ার ছেলে সৈয়কত মাইক্রো গাড়ী চালিয়ে যাবার সময় মটর সাইকেলে ধাক্কা দিলে তারা রোডের উপর ছিটকে পড়ে। আবুল কালাম আজাদকে কুষ্টিয়ায় চিকিৎসা শেষে বাড়ী নিয়ে আসে। গতকাল ভোর ৪টার দিকে নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। সকালে তার মৃত্যু সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে তাকে এক নজর দেখের জন্য শত শত মানুষ ভীড় জমায়। আবুল কালামের মৃত্যুতে তার পরিবারে কান্নায় আকাশ ভারি হয়ে ওঠে। মৃত্যুকালে স্ত্রী, ১ ছলে, আত্বিয় স্বজনসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।  গতকাল বাদ জোহর তার নিজ গ্রাম চরপাড়াতে জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তার মৃত্যুতে আলমডাঙ্গা ডিপ্লোমা ডেন্ডিস্ট গনসহ সকলে তার পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *